ফরিদপুরে সাবেক স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর এপিএস ফুয়াদ গ্রেপ্তার, রিমান্ডের জন্য কোর্টে প্রেরণ

  • আবু নাসের হুসাইন, ফরিদপুর :
  • বুধবার, ১৩ অক্টোবর ২০২১ ০৮:১৬:০০

দেশের বহুল আলোচিত দুই হাজার কোটি টাকা মানি লন্ডারিং মামলার অন্যতম আসামী ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহার বাড়ি ভাংচুরের ঘটনার মামলার আসামী সাবেক স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর এপিএস বহিস্কৃুত যুবলীগ নেতা এইচ এম ফুয়াদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে ভাটারা থানার সহযোগিতায় তাকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।  
তার আটকের বিষয়ে বুধবার দুপুরে ফরিদুপরের পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আয়োজিত প্রেস কনফারেন্সে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামাল পাশা বলেন, গতরাতে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভাটারা থানার সহযোগিতায় তাকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। 
তিনি বলেন তাকে রাজবাড়ীর রাস্তার মোড়ের ছোটন হত্যা মামলার সন্দেহ ভাজন আসামী হিসেবে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এই মামলায় তাকে আদালতে পাঠিয়ে রিমান্ডের আবেদন জানানো হবে। 

তিনি আরো বলেন এই মামলা ছাড়াও দুই হাজার কোটি টাকা মানি লন্ডারিং মামলা ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহার বাড়ি ভাংচুরের ঘটনার মামলা সহ মোট ৮টি মামলা রয়েছে। এই সব মামলার প্রত্যেকটিতে তার বিরুদ্ধে আদালতে চাজর্শীট দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে তিনটি মামলায় ওয়ারেন্ট রয়েছে। তিনি বলেন, ফুয়াদ দীর্ঘদিন আত্মগোপন করে ছিলেন ঢাকা সহ দেশের বিভিন্নস্থানে। তাকে ধরতে পুলিশ দেশের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান করেছিলো এর আগে। 

পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয় আসামী এইচ এম ফুয়াদ দীর্ঘ ১০ বছর যাবৎ ফরিদপুর শহরে হেলমেট বাহিনী, হাতুরী বাহিনীসহ বিভিন্ন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী বাহিনী গঠন করে টেন্ডারবাজি, চাদাঁবাজি, পাসপোর্ট অফিস, বিআরটিএ অফিস, বিভিন্ন হাট বাজার ইজারা, বালু মহল নিয়ন্ত্রন, ভূমি দখল, বাসষ্টান্ড ও সিএন্ডবি ঘাট দখলসহ বিভিন্ন সরকারী অফিসে ত্রাস সৃষ্টি করে অঢেল অবৈধ সম্পদ অর্জন করেছে। তার সময়ে আওয়ামীলীগ ও যুবলীগে অগনিত বিরোধী পন্থি রাজনৈতিক পদধারী ব্যক্তিকে দলে ঢুকানো হয়। এই পদ বিক্রি করেও তিনি প্রচুর টাকা নিতেন বলে খবর রয়েছে জেলা রাজনীতিতে।   

এদিকে ফুয়াদের আটকের ঘটনা ফরিদপুরে ছড়িয়ে পরলে অনেকে ধন্যবাদ জানিয়েছে ফরিদপুর জেলা পুলিশকে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

মন্তব্য