আইনের লোক পরিচয়ে শিবচরে ব্যবসায়ীর স্বর্ন ছিনতাইয়ের চেষ্টা, হাতেনাতে আটক ৩

  • মাদারীপুর প্রতিনিধি:
  • মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর ২০২১ ১২:৫০:০০

কর্মচারীর দেয়া খবরে আইনের লোক পরিচয়ে শিবচরে স্বর্ন ব্যবসায়ীর স্বর্ন ছিনতাইয়ের  চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় হাতেনাতে আটক ২ ছিনতাইকারীর দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে অন্যতম পরিকল্পনাকারী ওই কর্মচারীকে আটক করেছে পুলিশ।
 

আক্রান্ত স্বর্ন ব্যবসায়ী জানায়, ছিনতাই ঘটনা চলাকালে কিশোর নামের কর্মচারী ওই ব্যবসায়ীর বাসায় বসেই খাবার খাচ্ছিল ও মোবাইলে ঘটনা তদারকি করছিল। এই ঘটনায় আপন ২ ভাই ও তাদের চাচাতো,খালাতো ভাইসহ নিকটতম ৪ স্বজনসহ কয়েকজন জড়িত বলে পুলিশ জানিয়েছে।
 আক্রান্ত ব্যবসায়ী জানায়, জেলার শিবচর পৌর বাজারের স্বর্ন ব্যবসায়ী নির্মল পালের ছোট ভাই একই ব্যবসায়ী দিনেশ পাল একটি ভাড়ার মটর সাইকেলে চড়ে রবিবার বিকেলে ৪ ভরি স্বর্নালংকার নিয়ে সে হলমার্ক করানোর জন্য ফরিদপুর যাচ্ছিল। মটরসাইকেলটি ঢাকা-খুলনা এক্সপ্রেস হাইওয়ের শিবচরের সূর্য্যনগর বাজার পার হওয়ার পর ২টি মটরসাইকেল এসে মটরসাইকেলটি গতিরোধ করে। ওই ২টি মটর সাইকেলের লোকেরা তাদের আইনের লোক (আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য) পরিচয় দিয়ে দিনেশের কাছে অবৈধ মাল আছে বলে দেহ তল্লাশী করে। 
এসময় তারা দিনেশকে মটরসাইকেলে তোলার চেষ্টা করে ও মটরসাইকেল চালককে মারধর করে। তাদের চিকিৎকারে এলাকাবাসি এগিয়ে এসে প্রতিরোধ করলে সুযোগ বুঝে দিনেশ সূর্য্যনগর বাজারের স্বর্ন ব্যবসায়ীদের খবর দেয়। স্থানীয় স্বর্ন ব্যবসায়ীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে রওনা করে ও দত্তপাড়া পুলিশ ফাড়িতে খবর দেয়। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা গিয়ে ছিনতাইকারী আচ করতে পেরে স্থানীয়দের নিয়ে ঘেরাও করে রেখে মারধর করে। 
পরে পুলিশ এসে রিফাত সিকদার (২০) ও রাজিব সিকদার (২৬) কে হাতেনাতে আটক করে। তবে মটরসাইকেল দুটি নিয়ে বাকি ছিনতাইকারীরা পালিয়ে যায়। রাতে ছিনতাইকারীদের নিয়ে শিবচর থানার ওসি মোঃ মিরাজ হোসেনের কাছে সোপর্দ করলে বের হয়ে আসে গা শিউরে উঠা তথ্য।

 রিফাত ও রাজিব অফিসার ইনচার্জের কাছে স্বীকার করে এ ঘটনার মূল হোতা ও তথ্য দাতা দিনেশের দোকানের কর্মচারী কিশোর সরকার(২০)। দিনেশ দোকান থেকে রওনা দেয়ার পরই কিশোর মোবাইলে আটক রাজিব সিকদারের ছোট ভাই রনি সিকদারকে জানায়। রনি তার বড় ভাই রাজিব , চাচাতো ভাই রিফাত ও খালাতো ভাই জহরুল মুন্সীকে দিয়ে  ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে। রাতেই পুলিশ কিশোর সরকারকে আটক করেছে।

 কিশোর ৬ বছর যাবৎ এই দোকানে কর্মরত ছিল। আটক ৩ জনই প্রাথমিকভাবে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে পুলিশের কাছে। আটক কিশোর জেলার শিবচরের দক্ষিন বহেরাতলা ইউনিয়নের নমোকান্দি গ্রামের বিকাশ সরকারের ছেলে। অপর আটক ২ চাচাতো ভাই রাজিব সিকদার উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়নের চরবাচামারা গ্রামের মজিবর সিকদারের ছেলে ও রিফাত সিকদারের একই বাড়ির ইমারত সিকদারের ছেলে।

আক্রান্ত ব্যবসায়ী দিনেশ পাল বলেন, আমি বাইকে স্বর্নালংকার হলমার্ক করাতে যাচ্ছিলাম। সূর্য্যনগর বাজার পার হতেই ২টি মটরসাইকেল আমাদের ব্যরিকেড দিয়ে বলে আমরা আইনের লোক। তারা আমাকে মটরসাইকেল তুলে নেয়ার চেষ্টা করে। এসময় মটরসাইকেল ড্রাইভার চিৎকার দিলে স্থানীয়রা এসে ওদের ঘেরাও করে। সুযোগ বুঝে আমি স্থানীয় ব্যবসায়ীদের খবর দিলে তারা পুলিশকে ফোন দেয়। পরে পুলিশ ওদের আটক করে।

শিবচর থানার ওসি মোঃ মিরাজ হোসেন বলেন, আটক ২ ছিনতাইকারীর স্বীকারোক্তির ভিত্তিত্বে ওদের দোকানের কর্মচারী কিশোরকে আটক করলে কিশোর সব স্বীকার করে। মুলত কিশোরই এই চক্রটিকে খবর দিয়েছিল। মামলা প্রক্রীয়াধীন রয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

মন্তব্য